top of page

মিশরের আসওয়ান শহর থেকে উদ্ধার হল প্রায় ১৪০০টি মমি সহ ৩৬টি সমাধি




৩ জুলাই, ২০২৪: মমির দেশ মিশর, ছোট থেকেই আমাদের স্বপ্নের জগতে বিচরণ করে। সেই শহর প্রত্নতাত্বিকদের কাছেও স্বর্গরাজ্য। শহরের কথা ভাবলেই চোখের সামনে ভেসে ওঠে উঁচু উঁচু পিরামিডের নীচে শায়িত সাদা কাপড়ে জড়ানো মৃতদেহ। কিছু না কিছু আবিস্কৃত হচ্ছেই সেখানে প্রায়শই। ফের একবার শিরোনামে সেই শহর।

সম্প্রতি এখানকার একটি শহরে প্রত্নতাত্ত্বিকেরা খুঁজে পেয়েছেন ৩৬টি সমাধি। কোনও সমাধিতে রয়েছে ৩০টি মমি, কোথাও আবার ৪০টি। এ ভাবেই প্রায় ১৪০০টি মমি মাটির নীচ থেকে তুলে এনেছেন প্রত্নতাত্ত্বিকেরা। এই জায়গাটি খ্রিস্টপূর্ব ৬ষ্ঠ শতাব্দী থেকে খ্রিস্টপূর্ব ৯ম শতাব্দীর মধ্যে প্রায় ৯০০ বছর ধরে ব্যবহার করা হয়েছে বলে অনুমান করছেন তাঁরা। উল্লেখ্য, প্রত্নতাত্ত্বিকরা আগা খান তৃতীয়ের আধুনিক সমাধির কাছে অবস্থিত পাহাড়ে একটি স্থানে খনন করতে পাঁচ বছর কাটিয়েছেন।





বর্তমানে শহরটিকে আসওয়ান বলে ডাকা হলেও অতীতে শহরটি অন্য নামে পরিচিত ছিল। প্রথমে এই শহরটি সুয়েনেট বলে পরিচিত ছিল। পরে নাম পাল্টে হয়ে যায় সওয়ান। যার অর্থ বাজার। পরে সেই নামও পাল্টে হয় আসওয়ান। কবরস্থানটি ২,৭০,০০০ ফুট বিস্তৃত এবং সমাধি সহ ১০টি সোপান রয়েছে। মিশরীয় পুরাকীর্তি বিভাগের সুপ্রিম কাউন্সিলের প্রধান আয়মান আশমাওয়ের মতে, মমিগুলির ৩০- ৪০% শিশু এবং কিশোর-কিশোরীদের অন্তর্ভুক্ত, যাদের মধ্যে অনেকেই রক্তাল্পতা, যক্ষ্মা, সংক্রামক রোগ এবং অর্গ্যান ফেইলিওর- এর মত ব্যাধিতে মারা গিয়েছিল।





প্রত্নতাত্ত্বিকদের ধারণা, পারস্য রাজাদের শাসনকাল, গ্রিক টলেমাইক রাজবংশ, রোমান শাসনকাল-সহ ইতিহাসের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ পর্যায় সম্পর্কে জানা যাবে এই সমাধিগুলি থেকে। আবিষ্কৃত হওয়া তুলনামূলক ভালো অবস্থায় থাকা মমিগুলি কোনও মিউজিয়ামে রাখা হবে এবং বাকিগুলি যেমন ছিল, সেই জায়গাতেই সঠিকভাবে সংরক্ষন করে রাখা হবে। আগামী দিনেও এই এলাকায় খননকার্য চালাবেন প্রত্নতাত্ত্বিকেরা। সেই সঙ্গে শহরটি সম্পর্কে আরও বেশি তথ্য সংগ্রহের চেষ্টা করবেন। তাঁদের মতে, এই আবিষ্কার ইতিহাসের এক নতুন দিক খুলে দেবে।





মিলান বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্নতাত্ত্বিক প্যাট্রিজিয়া পিয়াসেন্টিনি, প্রাচীন শহর আসওয়ান সম্পর্কে আরও আবিষ্কারের জন্য গবেষকদের একটি দলকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন, যা একসময় একটি গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্য কেন্দ্র, গ্রানাইট কোয়ারি এবং নীল নদীর পূর্ব তীরে মিলিটারি পোস্ট হিসেবে প্রতিষ্ঠিত ছিল। মনে করা হচ্ছে শহরটি প্রায় ৪,৫০০ বছর আগে অবস্থিত ছিল।


পিয়াসেন্টিনি ডেইলি মেইলকে একটি বিবৃতিতে বলেছেন, "এটি সত্যিই মিশরে খুব অনন্য একটি সন্ধান ছিল" । আসওয়ানের লোকেরা সমাধি দিয়ে পাহাড়কে আবৃত করেছিল বলে এটা 'মৃতদের শহর' বা সিটি অফ ডেথ নাম অভিহিত করছেন প্রত্নতাত্ত্বিকেরা।

Commenti

Valutazione 0 stelle su 5.
Non ci sono ancora valutazioni

Aggiungi una valutazione

Top Stories

bottom of page