top of page

অনন্ত ভাই আম্বানির বিবাহ উপলক্ষে গণবিবাহ, ভারতের সম্প্রদায়ের জন্য ভালবাসা এবং সমর্থনের আলোকবর্তিকা




২ জুলাই, ২০২৪: অনন্ত ভাই আম্বানি এবং রাধিকা বণিকের বিবাহকে সামনে রেখে প্রাক-বিবাহ উদযাপনের সিরিজে, মহৎ উদ্দেশ্য এবং আন্তরিকতায় উদযাপিত হল বিশেষ ভাবে সুবিধাযুক্ত দম্পতিদের গণবিবাহের একটি ইভেন্ট। গুজরাটের জামনগরে গ্র্যান্ড উদযাপন এবং ইতালিতে একটি সমৃদ্ধ আন্তর্জাতিক ক্রুজের পর, আম্বানি পরিবার এই জনহিতকর প্রচেষ্টার মাধ্যমে আবারও জাতীয় মনোযোগ আকর্ষণ করেছে।


প্রাথমিকভাবে পালঘরের স্বামী বিবেকানন্দ বিদ্যামন্দিরে অনুষ্ঠিত হওয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছিল, কিন্তু পরে গণবিবাহ অনুষ্ঠানটি স্থানান্তরিত করে আজ থানের রিলায়েন্স কর্পোরেট পার্কে অনুষ্ঠিত হল। ইভেন্টটি সুখী দম্পতিদের মিলনকে জাঁকজমকপূর্ণভাবে উদযাপন করল আম্বানি পরিবার। বিলাসিতার মাধ্যমেই সম্পন্ন হল এই গণবিবাহ, যা তাদের সাধ্যের বাইরে ছিল।


অনন্ত আম্বানি এবং রাধিকা বণিকের বিয়ের উৎসবের সূচনা করে এই গণবিবাহের আয়োজন। এটি মুম্বাই থেকে প্রায় ১০০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত পালঘর এলাকার ৫০টিরও বেশি বিশেষসুবিধাসম্পন্ন দম্পতিদের একত্রিত করেছে। অনুষ্ঠানে দম্পতির পরিবারের সদস্য, স্থানীয় সমাজকর্মী এবং সম্প্রদায়ের সদস্যসহ প্রায় ৮০০ জন উপস্থিত ছিলেন। উদ্যোগটি যারপরনাই আম্বানি পরিবারের পরোপকারের নিদর্শন এবং বিশেষসুবিধাসম্পন্নদের উন্নতিতে নিবেদন করা হয়েছে।


আম্বানি পরিবার সবসময় "মানব সেবা হি মাধব সেবা" - (মানবতার সেবাই ঈশ্বরের সেবা)- র ওপর গুরুত্ব দিয়েছে। সমাজের সেবা করার মাধ্যমে প্রতিটি বড় পারিবারিক অনুষ্ঠান শুরু করার তাদের ঐতিহ্য রয়েছে। শ্রীমতী নীতা আম্বানি এবং শ্রী মুকেশ আম্বানি, তাদের পরিবারের সদস্যদের সাথে, এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন এবং এই শুভ অনুষ্ঠানে একটি ব্যক্তিগত স্পর্শ যোগ করে দম্পতিদের আন্তরিক শুভেচ্ছা জানান।


শুভেচ্ছাস্বরূপ, প্রতিটি দম্পতিকে মঙ্গলসূত্র, বিয়ের আংটি এবং নাকছাবি সহ সোনার অলঙ্কার দেওয়া হয়েছিল। তারা পায়ের চুটকি এবং পায়ের তোড়ার মতো রূপোর অলঙ্কারও পেয়েছে। এছাড়াও, প্রতিটি কনেকে ১.০১ লক্ষ (এক লক্ষ এক হাজার) রুপির চেক দেওয়া হয় তাদের 'স্ত্রীধন' হিসাবে। দম্পতিদের এক বছরের জন্য পর্যাপ্ত মুদি এবং গৃহস্থালীর সামগ্রীও উপহার দেওয়া হয়, যার মধ্যে রয়েছে ৩৬টি প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র এবং বাসনপত্র, একটি গ্যাসের ওভেন, মিক্সার এবং পাখা, গদি এবং বালিশ।


বিবাহের অনুষ্ঠানে সমস্ত অংশগ্রহণকারীদের জন্য একটি গ্র্যান্ড ডিনারের ব্যবস্থা ছিল, যা উদযাপনকে আরও আকর্ষণীয় করে তোলে। সন্ধ্যায় উপস্থিত সকলের জন্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ওয়ারলি উপজাতির দ্বারা পরিবেশিত ঐতিহ্যবাহী তরপা নৃত্য দেখার জন্যও আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। এই ফাংশনটি দিয়ে শুরু করে, আম্বানি পরিবার আসন্ন বিয়ের মরসুমে সারা দেশে এরকম আরও শত শত বিয়েকে গুরুত্ব দিয়ে সমর্থন জানায়।

অনন্ত ভাই আম্বানি এবং আম্বানি পরিবারের দ্বারা আয়োজিত গণবিবাহ শুধুমাত্র একটি প্রাক-বিবাহের উদযাপনই ছিলনা, এটি ৫০ টিরও বেশি দম্পতি এবং তাদের পরিবারের জন্য আনন্দ বয়ে এনেছিল যা ভারতের বিশেষসুবিধাসম্পন্নদের জন্য ভালবাসা এবং সমর্থনের আলোকবর্তিকা হিসেবে উপস্থাপিত হয়েছিল।

Comments

Rated 0 out of 5 stars.
No ratings yet

Add a rating

Top Stories

bottom of page