top of page

২ সেপ্টেম্বর মহাকাশে সৌরযান পাঠাতে চলেছে ISRO


৩০ অগাস্ট: চাঁদের পর এবার সূর্য জয়ের জন্য উদ্যোগ নিয়েছে ভারতের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ISRO। আগামী ২ সেপ্টেম্বর সকাল ১১.৫০ মিনিটে অন্ধ্রপ্রদেশের শ্রীহরিকোটা থেকে পিএসএলভি রকেটে উৎক্ষেপণ করা হবে আদিত্য এল১ স্যাটেলাইট। তবে ইসরোর এই মহাকাশযান কিন্তু সূর্যে পৌঁছবে না।



মূলত সূর্য সম্পর্কে জানার জন্যই এই মিশনটি চালু করেছে ইসরো। তাই এটি অরবিটে প্রতিস্থাপন করা হবে। যার পৃথিবী থেকে দূরত্ব ১.৫ মিলিয়ন কিলোমিটার। এই জায়গা থেকে আদিত্য এল ১ সূর্যের উপর ক্রমাগত নজরদারি চালাতে পারবে। সূর্যের কাছাকাছি যাওয়া সম্ভব নয় প্রচণ্ড তাপের জন্য। বিশ্বের এখনও পর্যন্ত কোনও দেশ এই অসাধ্য সাধন করে দেখাতে পারেনি। এল ওয়ান পয়েন্ট থেকে তাই সূর্যের উপর নজরদারি চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে আদিত্য এল ১।



হাতে গোনা আর কয়েক দিন পরই এই অভিযান শুরু হতে চলেছে। আদিত্য এল ১ স্যাটেলাইটটি ইতিমধ্যেই অন্ধ্রপ্রদেশের শ্রীহরিকোটার সতীশ ধাওয়ান স্পেস সেন্টারে এসে গিয়েছে। পোলার স্যাটেলাইট লঞ্চ ভেহিক্যাল বা পিএসএলভি রকেটের সাহায্যেই আদিত্যকে মহাকাশে পাঠাবে ইসরো। জানা গিয়েছে, বেঙ্গালুরুর ইউআর রাও স্য়াটেলাইট সেন্টারে তৈরি হয়েছে এই স্যাটেলাইট।



সান-আর্থ সিস্টেমের হ্যালো অরবিটের ল্যাগরেঞ্জ পয়েন্ট ১- এ পাঠানো হবে এই সৌরযানকে। এই ল্যাগরেঞ্জ পয়েন্ট ১- এ পৌঁছলে গ্রহণ-বিহীনভাবে সূর্যের ওপর নজরদারি চালাতে পারবে আদিত্য। গন্তব্যে পৌঁছতে আদিত্য এল ১- এর লাগবে মোট চার মাস। সূর্যের উচ্চ বায়ুমণ্ডলীয় (ক্রোমোস্ফিয়ার এবং করোনা) গতিবিদ্যা নিয়ে গবেষণা করবে আদিত্য। সৌরজগতে কী ঘটছে এবং পৃথিবীর ওপর তার প্রভাব কী পড়ছে, সে বিষয়ে নজরদারি করবে আদিত্য। এখান থেকে সূর্যের উপর সরাসরি নজর রাখা সম্ভব হবে। পৃথিবীর আবহাওয়ার উপর ঠিক কী প্রভাব বিস্তার করে সূর্য তা জানা সম্ভব হবে এই মিশন সফল হলে। সৌর বিস্ফোরণের কারন খতিয়ে দেখার পাশাপাশি ইসরোর তরফে জানানো হয়েছে, আংশিকভাবে আয়োনাইজড প্লাজমার পিছনে কী বিজ্ঞান লুকিয়ে আছে, তা নিয়েও গবেষণা চালানো হবে আদিত্য-এল ১ মিশনে।


Comments

Rated 0 out of 5 stars.
No ratings yet

Add a rating

Top Stories

bottom of page