top of page

সন্দেশখালি আন্দোলনকে হাতিয়ার করে লোকসভা ভোটে আসনসংখ্যা বাড়াতে চায় বিজেপি




কলকাতা, ২২ ফেব্রুয়ারি: সন্দেশখালি আন্দোলনকে হাতিয়ার করে বিজেপি বাংলায় লোকসভা ভোটে আসনসংখ্যা বাড়াতে চায়। বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে, সেটা চান দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বও। সেই নির্দেশকে কাজে লাগাতে পরিকল্পনাও পাকা বঙ্গ বিজেপির। সেইমতো সন্দেশখালিকে কেন্দ্র করে রাজ্য নেতৃত্বকে লাগাতার কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এদিকে সাংবাদিক বৈঠক বাতিল করে বৃহস্পতিবার কলকাতায় ফিরে এলেন ডিজি রাজীব কুমার। সন্দেশখালি থেকে সকাল ১০টায় সাংবাদিক বৈঠক করার কথা ছিল রাজ্য পুলিশের ডিজি রাজীব কুমারের। গতকাল রাতে বিরাট বাহিনী নিয়ে সন্দেশখালিতেই ছিলেন তিনি। সূত্রের খবর, গতকাল রাতভর স্থানীয় পুলিশকে বিভিন্ন নির্দেশ দিয়েছেন ডিজি। এমনকী একসময় মাঝরাতে বাইকে চড়ে বেরিয়ে এলাকার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ এলাকা ঘুরে দেখেন তিনি। একইসঙ্গে বিশাল পুলিশ বাহিনীকে এলাকায় টহল দিতেও দেখা গিয়েছে রাত থেকে।

বৃহস্পতিবার সকালে অবশ্য জলপথে বেশ কয়েকটি দ্বীপ ঘুরে দেখেন রাজীব। কথা বলেন পুলিশ, সিভিক পুলিশদের একাংশের সঙ্গেও। সেই সময় (লঞ্চে পরিদর্শনের আগে) রাজীব সংবাদমাধ্যমকে বলেন, “যাঁদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আছে, তাঁরা সবাই গ্রেফতার হবেন। যাঁরা আইন ভেঙেছেন, তাঁরা গ্রেফতার হবেন।” সন্দেশখালি ছাড়ার আগেও তিনি বলেন যে, “পুরো এলাকায় ঘুরে ঘুরে মানুষের সঙ্গে কথা বলেছি। জমি দখল-সহ যে সমস্ত অভিযোগ উঠেছে, সেগুলি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।” সাধারণ মানুষের উদ্দেশে তিনি জানান, “আপনারা পুলিশ-প্রশাসনকে সাহায্য করুন। পুলিশ সমস্ত অভিযোগ খতিয়ে দেখছে। আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ করা হবে।”

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবারই জাতীয় আদিবাসী কমিশনের প্রতিনিধিদল সন্দেশখালিতে এসেছেন। গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলছেন তাঁরা। সন্দেশখালির পাঁচটি জায়গায় মোট দশটি সিসি ক্যামেরা লাগানো হয়। নতুন করে যাতে কোনও রকম অশান্তি না ছড়ায়, সেই নজরদারির জন্যই এই বন্দোবস্ত।

Kommentare

Mit 0 von 5 Sternen bewertet.
Noch keine Ratings

Rating hinzufügen

Top Stories

bottom of page