top of page

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬৩ তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে নতুন ইন্সট্রুমেন্টাল অ্যালবাম "Ode to My Beloved"




মুম্বই, ৮ মে, ২০২৪: #Odetomybeloved-এর সাথে রবীন্দ্রসঙ্গীতের মায়াময় জগতে ডুব দিন। কবিগুরুর জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে একটি ফ্রেশ নতুন যন্ত্রসংগীত অ্যালবাম, যাতে রয়েছে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের পাঁচটি রচনা এবং রাগ তিলক কামোদের একটি ঐতিহ্যবাহী শাস্ত্রীয় অংশ উপস্থাপন করছে কৃষ্ণ কায়াল, একটি ব্লুপার হাউস প্রযোজনা এবং যা প্রযোজিত হচ্ছে সায়নদীপ রায়, মেঘদূত রায়চৌধুরী এবং সত্রাজিৎ সেন দ্বারা। স্রষ্টার ১৬৩ তম জন্মবার্ষিকীতে তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা, প্রেম, আকাঙ্ক্ষা এবং চিরন্তন থিমগুলি অন্বেষণ করে সত্রাজিৎ সেনের পরিকল্পনা, শুভজিৎ ঘোষের প্রযোজনা এবং সায়নদীপ রায়ের সঙ্গীত। এই সঙ্গীত অভিজ্ঞতা তাঁর ১৬৩ তম জন্মবার্ষিকীতে কবিগুরুর শ্রদ্ধা হিসাবে বোঝানো হয়েছে। সায়নদীপ নিজেকে সঙ্গীতের মাধ্যমে প্রকাশ করার জন্য এই সুযোগটিকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছিলেন। ম্যান্ডোলা শুনে শ্রোতারা যে আবেগ অনুভব করবে সেখানেই তার অর্থ খুঁজে পাবে। এটি শ্রোতাদের একটি অনন্য অভিজ্ঞতা দেবে। সেলিম সুলাইমান মিউজিকের ইউটিউব চ্যানেল এবং সমস্ত অডিও প্ল্যাটফর্মে এই অবিস্মরণীয় যাত্রায় যোগ দিন।






এই চমৎকার যন্ত্রের মূর্ছনার পাশাপাশি মুক্তি পেয়েছে কালজয়ী "ভালোবেসে সখি" এর একটি বিশেষ ভিজ্যুয়াল সংকলন। সত্রাজিৎ সেন এবং রিচা শর্মা অভিনীত, এই মিউজিক ভিডিওটি চেতনা শৈলীর একটি জাদুকরী রূপক ধারার মাধ্যমে প্রেম, বিরহ এবং রক্ত- মাংসের নশ্বর পৃথিবীতে বর্ণনামূলক অনুভূতির অমরত্বের প্রতি ঠাকুরের গভীর বিশ্বাসের থিমগুলিকে পর্দায় নিয়ে আসে।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ব্যাপকতা বাংলার বাইরেও বিস্তৃত। তিনিই একমাত্র অ-ইউরোপীয় যিনি সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার জিতেছেন (১৯১৩), এবং তাঁর রচনাগুলি সারা বিশ্বের সঙ্গীতপ্রেমীদের দ্বারা লালিত। এই ইন্সট্রুমেন্টাল উপস্থাপনা তাঁর কাজের একটি নতুন দৃষ্টিভঙ্গি উপস্থাপন করে, বিশ্বব্যাপী দর্শকদের গভীর আবেগের সাথে সংযোগ করার জন্য আমন্ত্রণ জানায়।






অনুষ্ঠানে অভিনেত্রী রিচা শর্মা বলেন, "রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কালজয়ী কাজ উদযাপন করা এই প্রজেক্টের অংশ হতে পেরে আমি অবিশ্বাস্যভাবে সম্মানিত। এটা বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য যে সঙ্গীতটি সেলিম সুলাইমান করেছেন। আমরা কৃতজ্ঞ। সত্রাজিত, যাঁর দূরদর্শিতা এবং উদ্যোগ এই পুরো প্রকল্পটি সম্ভব করেছে।"

সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে সত্রাজিৎ সেন বলেন, “রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সঙ্গীত সবসময় আমার হৃদয়ে একটি বিশেষ স্থান দখল করে আছে। 'Ode to My Beloved' তৈরি করা একটি নতুন যন্ত্রের লেন্সের মাধ্যমে তাঁর রচনাগুলির মধ্যে আবেগের গভীরতা অন্বেষণ করার একটি উপায় ছিল। আমি প্রতিভাবান শিল্পীদের এই দলটির কাছে কৃতজ্ঞ এই দৃষ্টিভঙ্গিকে বাস্তবায়িত করার জন্য। আমরা বিশেষভাবে সেলিম সুলাইমানের কাছে কৃতজ্ঞ যিনি কবিগুরুর কালজয়ী রচনাগুলির এই অনন্য যন্ত্রের প্রদর্শনের জন্য তাঁদের প্ল্যাটফর্ম প্রদান করেছেন।





দলের সামনে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল গানের ভাবনায় ভারসাম্য আনা এবং একই সাথে রবীন্দ্রনাথ আমাদের যে ব্যাখ্যা দিয়েছেন তার বিশাল সমুদ্র অন্বেষণ করা। পরিচালক ঋত্বিক সিনহা, যিনি নিজে কনসেপ্ট রাইটার এবং অর্ঘ্য কয়ালের যৌথ প্রচেষ্টা, সত্রাজিৎ সেনের কাজটি করতে আত্মবিশ্বাস যুগিয়েছে এবং সঙ্গীতের মূর্ছনা প্রবাহিত করার সুযোগ করে দিয়েছে।

অনীক চ্যাটার্জির নেতৃত্বে সিনেমাটোগ্রাফি টিম প্রতিটি ফ্রেম দেখে যাতে দর্শকরা আনন্দিত হন তা নিশ্চিত করতে রঙ, অনন্য আলো এবং কোরিওগ্রাফ ব্যবহার করেছে। যার মাধ্যমে দর্শকরা সঙ্গীতের এক স্বপ্নময় জগৎ অন্বেষণ করতে পারবেন। ব্যাকগ্রাউন্ডে সায়নদীপ রায়ের ম্যান্ডোলার সাথে সেই অভিজ্ঞতা যারপরনাই প্রবাহিত হবে দর্শকদের মননে। লেন্সের মাধ্যমে রবি ঠাকুরের সঙ্গীতের সারমর্ম অন্বেষণ করার এই প্রচেষ্টা হল একটি ব্লুপারহাউস স্টুডিওর উদ্যোগ, কৃষ্ণ কায়াল দ্বারা উপস্থাপিত এবং সায়নদীপ রায়, মেঘদূত রায়চৌধুরী এবং সত্রাজিৎ সেন প্রযোজিত প্রজেক্ট। চলতি বছরে কবিগুরুর প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে এবং তাঁকে নতুন আঙ্গিকে চিনতে- জানতে শুনতেই হবে এই অ্যালবাম।






Comments

Rated 0 out of 5 stars.
No ratings yet

Add a rating

Top Stories

bottom of page