top of page

ভোটপ্রচার শেষেই একেবারে উত্তরবঙ্গ থেকে ফিরবেন মুখ্যমন্ত্রী



কলকাতা, ১ এপ্রিল, ২০২৪: আগামী বুধবার, ৩ এপ্রিল উত্তরবঙ্গে ভোটপ্রচার করতে যাওয়ার কথা ছিল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। কিন্তু ঘূর্ণিঝড়ে বিপর্যয়ের খবর পাওয়া মাত্রই রবিবার রাতে জলপাইগুড়ি পৌঁছে গিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নবান্ন সূত্রে খবর, এই মুহূর্তে আর কলকাতায় ফিরছেন না মুখ্যমন্ত্রী। বুধবার পর্যন্ত জলপাইগুড়িতেই থাকবেন, এমনই জানা যাচ্ছে। বৃহস্পতিবার, নির্ধারিত দিন থেকেই নির্বাচনী প্রচার শুরু হবে তাঁর। ভোটপ্রচার সেরে একেবারে নির্ধারিত সময়ে কলকাতায় ফিরবেন তিনি।

রবিবার বিকেলে জলপাইগুড়ির বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডব চলেছে। মৃত্যু হয়েছে পাঁচ জনের। গুরুতর জখম বেশ কয়েকজন। গতকাল রাতে জলপাইগুড়ি পৌঁছেই মমতা মৃতদের পরিবার এবং আহতদের সঙ্গে দেখা করতে যান। জলপাইগুড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল থেকে রাত আড়াইটে নাগাদ জলপাইগুড়ির মালবাজারের চালসার একটি হোটেলে ওঠেন মুখ্যমন্ত্রী। এখনও সেখানেই রয়েছেন তিনি।

জলপাইগুড়ির পরিস্থিতি সম্পর্কে খোঁজ নিতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ফোন করলেন অমিত শাহ। এই বিষয়ে এক্স হ্যান্ডলে বাংলায় বার্তা দিয়েছেন শাহ। লিখেছেন, ‘‘ঝড়ের কারণে পশ্চিমবঙ্গ, অসম এবং মণিপুরের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির জন্য আমি গভীর ভাবে উদ্বিগ্ন। মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে কথা বলেছি এবং সম্ভাব্য সব ধরনের সহায়তার আশ্বাস দিয়েছি।’’ জলপাইগুড়ির ঘটনায় রবিবার রাতেই এক্স হ্যান্ডলে বার্তা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর। নিহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে তিনিও বিজেপির নেতা-কর্মীদের দুর্গতদের পাশে দাঁড়ানোর বার্তা দিয়েছিলেন। রাজ্যের রাজ্যপালও পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে পৌঁছেছেন জলপাইগুড়িতে।

এদিকে সোমবার দুপুরে আলিপুর হাওয়া অফিসের বুলেটিন অনুযায়ী, জলপাইগুড়ি-সহ উত্তরের তিনটি জেলায় সোমবার ঘণ্টায় ৪০ থেকে ৫০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া বইতে পারে। সেই সঙ্গে শিলাবৃষ্টি হতে পারে কিছু কিছু এলাকায়। দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি এবং কোচবিহারে কমলা সতর্কতা জারি করা হয়েছে। ওই জেলাগুলিতে ঝড়বৃষ্টি চলবে বুধবার পর্যন্ত।

Comments

Rated 0 out of 5 stars.
No ratings yet

Add a rating

Top Stories

bottom of page