top of page

প্রিন্সেপস, গোবর্ধন অ্যাশের রেট্রোস্পেকটিভ উপস্থাপন করল




কলকাতা, ২৯ মার্চ, ২০২৪: প্রিন্সেপস, একটি প্রথম সারির অ্যাভান্ট-গার্ড আর্ট হাউস, দ্য রেট্রোস্পেকটিভ অফ গোবর্ধন অ্যাশের উদ্বোধন ঘোষণা করতে পেরে যথেষ্ট আনন্দিত। এই প্রদর্শনীতে গোবর্ধন অ্যাশের জীবন এবং কাজ মিলিয়ে ১৯২৯ - ১৯৬৯ সময়কালের উপর ফোকাস করা হয়েছে, যেখানে ভারতীয় আধুনিকতাবাদী হিসাবে তাঁর কিছু কাজ আমরা দেখতে পাই।





অভিনেত্রী রিয়া সেন, এবং অভিনেত্রী মুনমুন সেন, প্রদর্শনীর আবরণ উন্মোচন করেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন: ইন্দ্রজিৎ চ্যাটার্জি, ব্রিজেশ্বরী কুমারী গোহিল, ইনা পুরী, রিচা আগরওয়াল এবং আরও অনেকে। প্রদর্শনীটি বিনামূল্যে জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত থাকছে ২৯ মার্চ থেকে ২১ এপ্রিল, ২০২৪ পর্যন্ত কলকাতা সেন্টার ফর ক্রিয়েটিভিটিতে।





প্রদর্শনীটিতে স্কেচ, ল্যান্ডস্কেপ, সেল্ফ পোর্ট্রেটস, পোর্ট্রেটস, আইকনিক অবতার সিরিজ, ভাইব্র্যান্ট প্যাস্টেল এবং তাঁর স্থায়ী চিলড্রেন সিরিজ সহ অ্যাশের কাজের একটি মনোমুগ্ধকর পরিসর রয়েছে। দর্শকরা অ্যাশের শৈল্পিক বিবর্তন, কৌশলগুলিতে তাঁর দক্ষতা এবং ভারতে আধুনিকতার জন্য একটি দিক নির্দেশের দিশা হিসেবে তাঁর অটল প্রতিশ্রুতি সম্পর্কে গভীর উপলব্ধি অর্জন করবে।





মিডিয়ার সাথে কথা বলার সময়, কিউরেটর মিঃ ইন্দ্রজিৎ চ্যাটার্জি, বলেন, “প্রিন্সেপস বাংলার শৈল্পিক চেতনা যথেষ্ট গভীরভাবে প্রকাশ করছে এই উল্লেখযোগ্য প্রদর্শনীর মাধ্যমে। বাংলার প্রকৃতির ধ্যানমগ্ন দৃশ্যের কালেকশনের পাশাপাশি ১৯৪০ সালের শেষের দিকে তাঁর আইকনিক 'অবতার সিরিজ' সহ তাঁর শৈল্পিক শ্রেষ্ঠত্বের চার দশকের ১০০ টিরও বেশি শিল্পকর্ম প্রদর্শিত হচ্ছে এই প্রদর্শনীতে।





এর মাধ্যমে, আমরা শিল্পের ইতিহাসে গোবর্ধন অ্যাশের নিজস্বতা এবং তাঁর অবদান উদযাপন করছি এবং তাঁকে সম্মান প্রদর্শন করছি। এই প্রদর্শনীটি, একটি বিস্তৃত ক্যাটালগ রেইসিনের সাথে, অ্যাশের উজ্জ্বলতাকে পুনরাবিষ্কার করার এবং ভারতীয় শিল্পের একটি গুরুত্বপূর্ণ যুগে (১৯৩০- ১৯৬০) নিজেকে নিমজ্জিত করার এক অনন্য সুযোগ করে দেয়।"





গোবর্ধন অ্যাশ (১৯০৭- ১৯৬৯) ভারতীয় শিল্পের ইতিহাসে এক বিশাল ব্যক্তিত্ব হিসাবে পরিচিত। পশ্চিমবঙ্গের বেগমপুরে একটি সাধারণ পরিবারে জন্মগ্রহণকারী অ্যাশ তদানীন্তন শৈল্পিক রীতিকে অস্বীকার করেছিলেন এবং নিজস্ব সৃজনশীল অভিব্যক্তিতে তাঁর জীবন উৎসর্গ করেছিলেন। দ্য রেট্রোস্পেকটিভ অফ গোবর্ধন অ্যাশ তার চার দশকের শৈল্পিক যাত্রা অন্বেষণ করার একটি অনন্য সুযোগ তৈরি করছে, যেখানে ১০০টিরও বেশি শিল্পকর্ম প্রদর্শন করা হচ্ছে।





প্রিন্সেপস হল একটি গবেষণা-কেন্দ্রিক প্রতিষ্ঠান যা শিল্প জগতের মধ্যে গবেষণা, আবিষ্কার এবং শিক্ষাকে উৎসাহিত করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।


Kommentare

Mit 0 von 5 Sternen bewertet.
Noch keine Ratings

Rating hinzufügen

Top Stories

bottom of page