top of page

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হতে চলেছেন শাহবাজ এবং প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন জারদারি




২১ ফেব্রুয়ারি: সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হতে চলেছেন শাহবাজ শরিফ। আর প্রেসিডেন্ট হবেন আসিফ আলি জারদারি। মঙ্গলবার সাংবাদিক বৈঠকে পিপিপি চেয়ারম্যান বিলাবল ভুট্টো জারদারি এমনটাই ঘোষণা করেন। নওয়া়জ শরিফের পিএমএল-এনের সঙ্গে হাতে হাত মিলিয়ে জোট সরকার গড়তে চলেছে পিপিপি। নওয়া়জ় শরিফের পিএমএল-এনের সঙ্গে হাতে হাত মিলিয়ে জোট সরকার গড়তে চলেছে পিপিপি। এর পাশাপাশি মুত্তাহিদা কওমি মুভমেন্ট পাকিস্তান (এমকিউএম-পি) ১৭টি আসন নিয়ে জোটকে সমর্থনের কথা জানিয়ে দিয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ৮ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানে ভোটের ফল প্রকাশ হয়। তাতে দেখা যায়, পিএমএল-এন জিতেছে ৭৫টি আসন, পিপিপি পেয়েছে ৫৪টি আসন। কিন্তু সবাইকে পিছনে ফেলে দিয়েছিলেন ইমরানের দল পিটিআই সমর্থিত নির্দল প্রার্থীরা। তাঁরা জিতেছিলেন মোট ৯৩টি আসনে। এই ফলাফলের জেরে কোনও দলই একক ভাবে সরকার গড়ার মতো অবস্থায় ছিল না। কাজেই জোট সরকার হিসেবে ১৪৬ জন জয়ী সদস্যের সমর্থন নিয়ে পাকিস্তানের মসনদে বসতে চলেছেন শাহবাজ। তবে আরও ছোট ছোট চারটি দল সমর্থন করছে তাদের। ফলে সব দল মিলিয়ে জোটটি পাকিস্তানের ২৬৪ আসনের জাতীয় পরিষদে সহজেই সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করতে পারবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ইসলামাবাদে সংবাদ সম্মেলনে পিপিপির চেয়ারম্যান বিলাবল ভুট্টো জারদারি জানান, ‘জাতির সর্বোত্তম স্বার্থে’ পিপিপি ও পিএমএল-এন আবার জোট সরকার গঠন করতে যাচ্ছে। ২৪ কোটিরও বেশি জনসংখ্যার দেশ পাকিস্তান অর্থনৈতিক সংকট, উন্নয়নে শ্লথগিত ও রেকর্ড মুদ্রাস্ফীতিতে ভূগছে। এর পাশাপাশি দেশটিতে জঙ্গি কার্যকলাপও বেড়ে চলেছে। এই পরিস্থিতিতে দেশটিতে একটি স্থিতিশীল প্রশাসন ও সরকার দরকার। কিন্তু নির্বাচনের পর ১০ দিন পেরিয়ে গেলেও সরকার গঠনে দেরি হতে থাকায় উদ্বেগ দেখা দিচ্ছিল। এবারে আশা করা যাচ্ছে, সমস্যার সমাধান হবে।

Comments

Rated 0 out of 5 stars.
No ratings yet

Add a rating

Top Stories

bottom of page