top of page

নতুন সংসদ ভবনে প্রতিষ্ঠিত হতে চলেছে ঐতিহাসিক রাজদন্ড 'সেঙ্গল'


২৫ মে: উদ্বোধন হতে চলেছে দেশের নতুন সংসদ ভবন। দেশের নতুন সংসদভবনে প্রধানমন্ত্রীর হাত ধরে প্রতিষ্ঠিত হবে একটি সোনার রাজদণ্ড। নতুন সংসদভবনে সেঙ্গল প্রতিষ্ঠা করার ঘোষণা করেন অমিত শাহ। বিশেষ রাজদন্ডটির একটি ইতিহাস আছে। ভারতের স্বাধীনার অধ্যায়ে এই রাজদণ্ডের এক বিশাল বড় ভূমিকা রয়েছে। এটির নাম 'সেঙ্গল'। ১৯৪৭ সালে যখন ভারত স্বাধীনতা লাভ করে, তখন স্বাধীনতার প্রতীক হিসেবে এই সেঙ্গল তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী জওহলরলাল নেহরুর হাতে তুলে দিয়েছিলেন ভারতের শেষ ভাইসরয় লর্ড মাউন্টব্যাটেন।



উল্লেখ্য, ‘সেঙ্গল’ শব্দটি তামিল শব্দ ‘সেম্মাই’ থেকে এসেছে, যার অর্থ ‘ন্যায়’। এর আগে দক্ষিণের চোল রাজবংশে এভাবে রাজদণ্ড প্রদান করে রাজ্যাভিষেক হত বা ক্ষমতা হস্তান্তর হত। স্বাধীনতা অর্জনের সময় লর্ড মাউন্টব্যাটেন, নেহরুকে ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রতীক হিসেবে কিছু রাখতে চান কি না তা জিজ্ঞেস করলে, নেহেরু এই নিয়ে প্রশ্ন করেছিলেন সি রাজাগোপালচারীকে। তখন এই তামিল ঐতিহ্যের কথা নেহরুকে জানিয়েছিলেন তিনি। এই ঐতিহ্যকে মাথায় রেখে প্রথা মেনে ভারতের ক্ষমতার ভার ব্রিটিশদের থেকে নেহরুর হাতে তুলে দিয়েছিলেন মাউন্টব্যাটেন।

এই রাজদণ্ডটি তৈরি তৈরি করা হয়েছিল তামিলনাড়ুতেই। রাজাগোপালচারী এই সেঙ্গল তৈরির জন্য ‘তিরুভাদুথুরাই আথিনাম’ মঠের গুরুর সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন। মঠের তরফে ভুমিদি বঙ্গারু চেট্টার নামক এক জহুরিকে এই সেঙ্গল তৈরির দায়িত্ব দেওয়া হয়। সেঙ্গলটি পাঁচ ফুট উঁচু। এর মাথায় আছে ন্যায়বিচারের প্রতীক তথা শিবের বাহন ‘নন্দী’।



এটি এতদিন প্রয়াগরাজের জাদুঘরে রাখা ছিল। সেঙ্গলকে নতুন সংসদ ভবনে প্রতিষ্ঠিত করার আগে তা এক শোভায্ত্রার মাধ্যমে নিয়ে আসা হবে। এই গোটা অনুষ্ঠানটি তামিল রীতি মেনে করা হবে বলে দাবি করা হচ্ছে। সেঙ্গলটি লোকসভা স্পিকারের আসনের পাশে প্রতিষ্ঠিত করা হবে বলে জানা গিয়েছে। জানা গিয়েছে, যখন প্রধানমন্ত্রী মোদী নতুন সংসদ ভবনে এই সেঙ্গল প্রতিষ্ঠিত করবেন, তখন বেশ কয়েকজন তামিল সঙ্গীতজ্ঞ 'নদস্বরম' নামক এক বাদ্যযন্ত্র বাজাবেন। লোকসভায় উপস্থিত থাকবেন তামিল শৈব মঠের পুরোহিতরা। সেই পুরোহিতরা পবিত্র জল ছিটিয়ে দেবেন সেঙ্গলের ওপর। সেই সময় তামিল গায়করাও রীতি মেনে গান গাইবেন।


Comentários

Avaliado com 0 de 5 estrelas.
Ainda sem avaliações

Adicione uma avaliação

Top Stories

bottom of page