top of page

গাজা থেকে নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছে হামাস, দাবি ইজরায়েলের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ইয়োভ গালান্টের


১৪ নভেম্বর: ১৬ বছর পর গাজা থেকে নিয়ন্ত্রণ হারাল হামাস, এমনটাই দাবি ইজরায়েলের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ইয়োভ গালান্টের। হামাসের ‘জঙ্গি’রা দক্ষিণ দিকে পালিয়ে যাচ্ছে। তাদের ঘাঁটিও অরক্ষিত অবস্থায় পড়ে আছে। ১৬ বছর পর এই কাজে সাফল্য এসেছে বলে দাবি করছে বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর সরকার।

যদিও এই ঘটনার সাপেক্ষে ইজরায়েল কোনও প্রমাণ পেশ করতে পারেনি। তিনি বলছেন, গাজার বাসিন্দাদের আর তাদের সরকারের উপর কোন আস্থা নেই। হামাস গাজার ‘দখলচ্যুত’ হওয়ায় ইজরায়েল এবারে হামাসের হাত থেকে তাঁদের পণবন্দি নাগরিকদের ছাড়িয়ে আনার ব্যাপারে মনোনিবেশ করেছে।

ইজরায়েলের দাবি, হাসপাতালে ডেরা বানিয়েছে হামাস। গাজার বহু হাসপাতালের বেসমেন্টে হামাসের ডেরা রয়েছে বলে সোমবার ইজরায়েল দাবি করেছে। এমনই এক হাসপাতালের নিচে পণবন্দিদেরও আটকে রাখা হয়েছে বলে দাবি ইজরায়েলের। ইজরায়েল এবং হামাসের মধ্যস্থতাকারী হিসাবে কাজ করছে নিরপেক্ষ রাষ্ট্র কাতার। কাতারের প্রতিনিধির মাধ্যমে একে অপরকে বার্তা দিচ্ছে যুদ্ধরত দুই পক্ষ।

পাঁচ দিনের যুদ্ধবিরতির পরিবর্তে ৭০ জন পণবন্দিকে ছাড়তে রাজি হয়েছে হামাস। ইজরায়েল চাইছে ১০০ জনকে মুক্তি দেওয়া হোক। হামাসের তরফে মুখপাত্র আবু ওবেদিয়া বলেছেন, ‘‘আমরা মধ্যস্থতাকারীকে জানিয়েছি যে, পাঁচ দিনের যুদ্ধবিরতি পেলে আমরা কিছু পণবন্দিকে মুক্তি দিতে রাজি। ওই পাঁচ দিনে আমরা আহতদের চিকিৎসা করব এবং ত্রাণ বিতরণ করব। কিন্তু শত্রুপক্ষ গড়িমসি করছে।’’ হামাসের তরফে জানানো হয়েছে, ১০০ জনকে মুক্তি দিলে ইজরায়েলের জেলে বন্দি ২০০ প্যালেস্টিনীয় শিশু এবং ৭৫ মহিলাকে মুক্তি দিতে হবে।





উল্লেখ্য, ৭ অক্টোবর থেকে শুরু হওয়া এক মাসের বেশি সময় ধরে চলা এই যুদ্ধে প্রতি দিন বহু মানুষ মারা যাচ্ছেন। শুধু গাজাতেই মৃতের সংখ্যা ১১ হাজার ছাড়িয়েছে। ইজরায়েলি হামলায় মৃতদের মধ্যে রয়েছে প্রায় পাঁচ হাজার শিশু। অবর্ণনীয় সেই সব মৃত্যুর দৃশ্য দেখলে শিউরে উঠতে হয়। হাসপাতালগুলোর ওপর চলছে হামলা। ভয়ে, ত্রাসে গাজার সাধারণ মানুষ প্রতিমুহূর্তে সন্ত্রস্ত হয়ে রয়েছে। গোটা বিশ্ব নিন্দা করছে ইজরায়েলের এই মনোভাবের। ইজরায়েলকে যুদ্ধ থামাতে অনুরোধ করা হয়েছে রাষ্ট্রপুঞ্জের তরফে। গাজার হাসপাতালে ইজরায়েলি হামলার নিন্দা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। ইরানের প্রেসিডেন্ট মোদীকে পশ্চিম এশিয়ার যুদ্ধ পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার চেষ্টা করতে বলেছেন। এ বিষয়ে ভারতকে তার ক্ষমতা প্রয়োগ করার অনুরোধ জানিয়েছে ইরান। সম্প্রতি ভারত সফরে এসেছিলেন আমেরিকার বিদেশমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন এবং প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন। তাঁদের সঙ্গে জয়শঙ্করের এই যুদ্ধ তথা পশ্চিম এশিয়া নিয়ে আলোচনা হয়েছে। পশ্চিম এশিয়ার যুদ্ধ পরিস্থিতি নিয়ে ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট লুইজ় ইনাসিও লুলা ডা সিলভার সঙ্গেও কথা বলেছেন মোদী। ইজরায়েল এবং প্যালেস্টাইন সঙ্কটে ভারতের অবস্থান যেহেতু প্রথম থেকেই নিরপেক্ষ, তাই এই সঙ্কটের দিনেও ভারতের গুরুত্ব বৃদ্ধি পেয়েছে। আমেরিকা-সহ পশ্চিমি দেশগুলি হামাসকে সন্ত্রাসবাদী সংগঠন হিসাবে দেগে দিলেও ভারত কিন্তু তা করেনি।

এদিকে ইসরায়েল- গাজা যুদ্ধের প্রভাব পড়েছে কলকাতাতেও। কলকাতায় বড়বাজারে অবস্থিত তিনটি সিনাগগ সর্বসাধারণের জন্য বন্ধ রয়েছে। কেন্দ্রের পক্ষ থেকে এমনই নির্দেশ এসেছে বলে লালবাজার জানিয়েছে। লালবাজার থেকে রোজ পুলিশ গিয়ে সিনাগগগুলি পর্যবেক্ষন করছে। শুধুমাত্র ধর্মীয় প্রার্থনা ছাড়া বাকি সময় তালা বন্ধ থাকছে এই ধর্মীয় স্থানগুলি। যদি কোনও ইহুদি পর্যটক আসে, তবেই তাদের জন্য খুলে দেখানোর আদেশ রয়েছে পুলিশের তরফ থেকে। যুদ্ধ শেষ না হওয়া পর্যন্ত এমনই চলবে।

Comments

Rated 0 out of 5 stars.
No ratings yet

Add a rating

Top Stories

bottom of page